ম্যান ভার্সেস ওয়াইল্ড, বিয়ার গ্রিলস, দুজন দেশ নায়কের সাক্ষাৎকার এবং সভ্যতায় ফিরে যাওয়া

1
483

ডিসকোভারি, ন্যাশনাল জিওগ্রাফি চ্যানেল দুটো স্থায়ী পরিচিতি পেতে বিয়ার গ্রিলসের অবদান কতটুকু সেটা এড়িয়ে গেলাম। এড়িয়ে গেলাম বিয়ার কি কি খান এবং পান করেন। এড়িয়ে গেলাম কঠিনতম পরিবেশে কিভাবে নিজেকে বাঁচিয়ে রেখে সভ্যতায় ফিরে আসবেন। হ্যাঁ আপাতত সভ্যতায় ফেরত আসাকেও এড়িয়ে গেলাম।

প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাকে একটা পর্বে বিয়ার আনতে সক্ষম হয়েছেন বলে পৃথিবীর আর কোনো মানুষ নাক বাঁকানোর সুজোগ চাইবেন না। আমি খুব মনোযোগ সহকারে পর্বটি দেখেছি। শিক্ষিত বাবা মায়ের ছেলে হলেও তাদের একসাথে তিনি পাননি। দু-বছর বয়সে তারা আলাদা হয়ে গেলে কখনো মায়ের কাছে কখনো দাদার কাছে বেড়েওঠা মানুষ। সেই প্রেসিডেন্টের আচরণ, কথা বলা এবং ভাব প্রকাশের স্বাভাবিকতা দেখে বারবার অভিভূত হয়েছি। ভবিষ্যৎ পৃথিবীর জন্য তার চিন্তার যে আভা কপালজুড়ে দেখেছি সেটা ছিলো কৃত্রিমতাহীন। ভাল্লুকের উচ্ছিষ্ট খাওয়া আর রসিকতাপূর্ণ আলাপ যে কাউকেই বিমোহিত করবে। একটা বিষয় হলো- আপনার স্বভাবসুলভ আচরন,আরেকটি হলো কৃত্রিম আচারন। যে কারো চোখে লেগে যাবে। এখানে যে দুটি শিক্ষা প্রয়োজন তা হলো পারিবারিক এবং প্রাতিষ্ঠানিক। যাদের পরিবার থেকে তা অর্জনের সুজোগ হয়নি,তারা প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার সাথে সাথে সমাজ বাস্তবতার আলোকে অপূর্ণতাকে অর্জন করে নিবেন নিজ দায়িত্বে। এখানে গড়বড় হলে আপনাকে ছলচাতুরীর আশ্রয়েই জীবন কাটাতে হবে।

যেহেতু বারাক ওবামা প্রোগ্রামটিতে অংশগ্রহণ করে ফেলেছেন সেহেতু ইন্ডিয়ান প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রস্তাব আসলে তা ফেরত দেবার কোনো মানে হয়না। তো সেই মহা পর্বটিও দেখলাম,এবং অনিচ্ছা সত্বে। কারন প্রথম দু চারটা কথা শুনলেই আপনার যা বুঝার বুঝতে পারবেন। পর্ব জুড়েই বিয়ার বেশ ইতস্ত ছিলেন,মনে হচ্ছে ঠিকঠাক সংযোগটা হয়ে উঠছে না। একজন মানুষ, যে প্রমান করতে মরিয়া- সে সব জানে। হিমালয়ের পাদদেশে ধ্যান করে তিনি মহামানব হবার কাজটি সেরে ফেলেছেন। রসবোধ সম্মন্ধে সামান্য ধারনা হয়নি। অহংকারী চালচলন আর আমিত্ববাদিতে ঠাঁশা। সামান্যতম বিনয় বোধ নাই। চা বিক্রি, ক্যান্টিন ওয়েটার এগুলো বলে আসলে কাজকে ছোট করা হবে। একজন মহান মানুষ যেকোনো কাজকেই গ্রহন করতে পারে। মানুষ যা কিছু করুক শিক্ষা এমন একটা বিষয় যা শেকড় থেকে আসতে হয়। নয়ত সভ্যতার জ্ঞান অধরাই থেকে যাবে।

এবার সভ্যতায় ফেরার কথা বলি যেটা বিয়ার গ্রিলস তাঁর প্রতিটি পর্বে দেখান। আপনি যদি হারিয়ে যান কোনো দূর্গম স্থানে। একটা উপমহাদেশের আপমর মানুষ দু-হাজার বিশ সালে এসেও অসভ্য রয়ে গেলো,সেখান থেকে সভ্য জগতে ফেরার জন্য আমরা কোন চ্যানেলের দিকে তাকিয়ে থাকবো?

আশাবাদী হতে আমরা জেনে রাখছি- সব নষ্টদের দখলে যায়নি। কিছু উত্তম প্রাণ আজো তাদের ভাবকে ছড়িয়ে দিতে বদ্ধপরিকর। যদিও আমাদের আশপাশে আবর্জনা বেশী। তবু আমরা হাল ছাড়তে চাইছিনা। আমরা একটা সুস্থ সুন্দর পৃথিবীর স্বপ্ন দেখতে থাকবো।

– সাইয়েদ আহমাদ

1 COMMENT